সম্প্রতি আপনার ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স নিয়ে চিন্তিত?

সম্প্রতি আপনার ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স নিয়ে চিন্তিত?

দিন যতই গড়াচ্ছে, ততই ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স বা আউটপুট নিয়ে সেলারদের আশংকা বাড়ছে। অনেক ই কমার্স/ এফ কমার্স ব্যবসায়ীদের অভিযোগ আগের মতো নির্দিষ্ট কোন বাজেটে ফেসবুক অ্যাড দিয়ে সেরকম আউটপুট পাচ্ছে না। যেমন আগে নূন্যতম ৫ ডলার বাজেটে পোস্ট বুস্টের অ্যাড দিয়ে যে ধরনের অডিয়েন্স রিচ পাওয়া যেতো, তা এখন অনেকাংশে কমে গিয়েছে। গত কিছুদিন ধরে তো এমন অবস্থা যে ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স আরো খারাপ অবস্থায় চলে গিয়েছে। ডিজিটাল মার্কেটিং বা ফেসবুক অ্যাড নিয়ে যারা কাজ করেন তারা ব্যাপারটাকে ভিন্ন ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা দিচ্ছে এবং সেগুলোর কোনটাই আসলে অপ্রাসঙ্গিক হিসেবে গন্য করা যাবে না বর্তমান পরিস্থিতিকে বিবেচনা করলে।

সম্প্রতি আপনার ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স নিয়ে চিন্তিত?

তো চলুন জেনে নেওয়া যাক যে ফ্যাক্টরগুলো আসলেই দায়ী হতে পারে বর্তমানে ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স ডাউন হওয়ার জন্যঃ

১। ফেসবুক কিছুদিন ধরে তাদের অ্যাড সিস্টেমে এবং পলিসিতে অনেক পরিবর্তন নিয়ে আসছে। যেমন আগে ডেমোগ্রাফি সেকশন থেকে ভার্সিটি বা কোম্পানি সরাসরি টার্গেট করা যেতো। তা এখন আর নেই। তবে এর বিপরীতে কিছু অপশন ফেসবুক অ্যাড করেছে এবং করছে। তাছাড়া হঠাৎ করেই অ্যাড একাউন্ট ব্যান করে দিচ্ছে ফেসবুক। এর মধ্যে কিছু ব্যান হচ্ছে পলিসি ভায়োলেশনের কারনে, আবার কিছু ব্যান হচ্ছে অজানা কারনে মানে এখানে কোন লজিক দাড় করানো যাচ্ছে না। খুব কম লোকই জানে যে ফেসবুক যখন অ্যাড একাউন্ট ব্যান করে তখন তারা যদি কার্ড থেকে ইন্স্ট্যান্ট বিল কেটে নিতে পারে তবে আপিল করলে ঐ অ্যাড একাউন্টটা ফেরত পাওয়া যায় এবং কার্ডটাও দ্বিতীয়বার ব্যবহারের সুযোগ থাকে। কিন্তু সম্প্রতি এমন হচ্ছে যেগুলোর বিল কেটে নিতে পেরেছে সেগুলোর ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা ৫০%। আবার যেগুলোর বিল কেটে নিতে পারে নাই ব্যান করার সময়, সেগুলোর কয়েকটা এনাবল করে দিচ্ছে। সুতরাং বুঝতেই পারছেন লজিকটা কাজ করছে না! এটা হতে পারে ফেসবুক তাদের অ্যাড সিস্টেমে যে আপগ্রেশন নিয়ে আসছে সেগুলোর কোন বাগ সমস্যার কারনে। আর এই বাগ সমস্যাও বর্তমানে ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স ডাউনের জন্য দায়ী হতে পারে।

২। এক্সপার্ট ছাড়া কম লোকই জানে যে ফেসবুক অ্যাড অকশন সিস্টেমে বিড করে কাজ করে। বেশিরভাগ এটাই মনে করে আমি ১০ ডলার ইনভেস্ট করেছি, সুতরাং ফেসবুক আমাকে এতো রিচ অবশ্যই দিবে। না দিলে তার মানে আমার অথবা যিনি সার্ভিসটি দিচ্ছেন তার অডিয়েন্স টার্গেটিং এ সমস্যা আছে। এ কথা অস্বীকার করার নয় যে অ্যাডের ভাল পারফর্মেন্স সঠিক অডিয়েন্স টার্গেটিংএর উপর অনেকাংশে নির্ভর করে। তবে আরো কিছু ফ্যাক্টর আছে যেগুলোতেও নজর দেওয়াটা দরকার। যেমন পোস্টের স্টাইল,প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের ইমেজ ইত্যাদি। যাই হোক অকশন সিস্টেম নিয়ে আলোচনা করছিলাম সেখানেই ফিরে যাই। আপনি যখন কোন অডিয়েন্স টার্গেট করছেন ফেসবুক অ্যাডের মাধ্যমে, আপনার মতো একই সেলার অথবা একই ইন্ডাস্ট্রিতে যারা বিজনেস করছে তারাও কিন্তু একই অডিয়েন্স টার্গেট করে অ্যাড দিচ্ছে। এতে হচ্ছে কি যারা ঐ অডিয়েন্সের জন্য বেশি বাজেট দিয়ে ব্যয় করছে বা বিড করছে ফেসবুক তাদেরকেই সেরা পারফর্মেন্সটা দিবে। আপনার কম বাজেট যেহেতু, পারফর্মেন্সটাও সেরকম পাবেন না। আগেই তো রাঘব বোয়ালরা ভালটা খেয়ে ফেলেছে। এটার একটা সুন্দর উদাহরণ দিয়েছেন এক ভাই ই ক্যাব গ্রুপের একটা পোস্টের কমেন্টে। ধরুন একটা ভার্সিটি ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত হল। প্রতিষ্ঠার পর থেকে গত ১৬ বছরে ঐ ভার্সিটি অনেক নামডাক হয়ে গেল এবং অনেক তরুন তরুনীর ড্রিমে পরিণত হল ঐ ভার্সিটিতে পড়ার জন্য। কিন্তু সিট তো নির্দিষ্ট ধরুন ২০০০। আর ভর্তিচ্ছুর সংখ্যা এই ২০১৭ তে এসে ২ লাখ। তাহলে এখন ২০০২ সালের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নের তুলনায় ২০১৭ সালের প্রশ্ন অনেক কঠিন হবেই। কারন একটাই সিটের কম্পিটিশন বেড়ে গিয়েছে।

৩। আরেকটা ফ্যাক্টর হচ্ছে সিজনাল ফ্যাক্টর। এটা অবশ্যই বুঝা উচিত সব সিজনেই কিন্তু কাস্টমারের বায়িং ইন্টেনশন সমানভাবে থাকে না। যেমন শীতকালে যদি আশা করেন অনেক ফ্যান সেল করবেন তাহলে এটা বোকামি। এটারো একটা নির্দিষ্ট সিজন আছে সেল ভলিউম বাড়ানোর জন্য। ঠিক তেমনি কিছু প্রোডাক্ট আছে বিশেষ করে মেয়েদের ড্রেস – এগুলো ঈদ, পূজা এসব সিজনে অন্যান্য সিজন থেকে ভাল চলে। এখন তাহলে অফ সিজনে তেমন চলবে না বলে বসে থাকবেন তা না কিন্তু। ডিজিটাল মার্কেটিং এ কিন্তু টেকনোলজি বা টুলসের থেকেও কাস্টমারের সাইকোলজি বুঝে কাজ করাটা অনেক গুরুত্বপূর্ন। অফ সিজনে কি ধরনের অফার বা পোস্ট স্টাইল ফেসবুক অ্যাডের মাধ্যমে কাস্টমারের এটেনশন গ্রাব করতে পারে তা নিয়ে আইডিয়া জেনারেট করুন। আশা করি অফ সিজনে ভাল ফলাফল পাবেন। এছাড়া এমন কিছু সিজন আছে যেমন বন্যা – এ সময়ে যে এরিয়াগুলো বন্যা কবলিত সেসব এরিয়া ফেসবুক অ্যাডে টার্গেট করলে রেসপন্স না পাওয়ারই কথা। আবার বন্যা না হলেও প্রচুর বৃষ্টিপাতের কারনে অনেকেই ডেলিভারি সমস্যার কথা চিন্তা করে অর্ডার করে না। প্রাকৃতিক দূর্যোগে কারো হাত নেই। এমনতাবস্থায় রেসপন্স না পাওয়ার জন্য ফেসবুক অ্যাডকে বা যিনি সার্ভিসটি দিচ্ছেন তাকে দায়ী করে লাভ নেই।

তো এই ছিল সম্ভাব্য ফ্যাক্টরগুলি যেগুলো আপনার ফেসবুক অ্যাডের পারফর্মেন্স ডাউনের জন্য দায়ী হতে পারে। এছাড়া এর বাইরে আরো কোন ফ্যাক্টর আপনার মাথায় আসলে কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না।

Write a Comment